কেন চীন মোদির মার্কিন সফর নিয়ে চিন্তিত: তাৎপর্য এবং কংগ্রেসের প্রতিক্রিয়া মূল্যায়ন Why China is worried about Modi’s US visit

কেন চীন মোদির মার্কিন সফর নিয়ে চিন্তিত: তাৎপর্য এবং কংগ্রেসের প্রতিক্রিয়া মূল্যায়ন Why China is worried about Modi’s US visit : ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাম্প্রতিক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সফর আমেরিকান নেতা, ব্যবসায়ী ব্যক্তিত্ব এবং বুদ্ধিজীবীসহ বিভিন্ন মহলের মনোযোগ ও প্রশংসা কুড়িয়েছে।

এই সফরের ফলে ভারত এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে উল্লেখযোগ্য চুক্তি এবং সহযোগিতা হয়েছে, যা কিছু মহলে, বিশেষ করে চীনের উদ্বেগের দিকে পরিচালিত করেছে। এই নিবন্ধটির লক্ষ্য চীনের উদ্বেগের পেছনের কারণ বিশ্লেষণ করা এবং মোদির মার্কিন সফরে কংগ্রেস দলের বিস্ময়কর প্রতিক্রিয়াকেও সম্বোধন করা।

চীনের উদ্বেগ এবং ভারতের কৌশলগত অংশীদারিত্ব                                                                                          চীনের শঙ্কার প্রাথমিক কারণগুলির মধ্যে একটি হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে ভারতের ক্রমবর্ধমান কৌশলগত অংশীদারিত্ব। যেহেতু চীন তার আঞ্চলিক উচ্চাকাঙ্ক্ষা প্রসারিত করছে এবং বিশ্বব্যাপী আধিপত্য বিস্তার করছে, ভারত তার নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জের সাথে চীনকে কার্যকরভাবে মোকাবেলা করতে চায়। ভারত তার নিরাপত্তা বজায় রাখার জন্য আধুনিক অস্ত্র, উন্নত বুদ্ধিমত্তা এবং উন্নত-সজ্জিত সশস্ত্র বাহিনীর প্রয়োজনীয়তা স্বীকার করে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, উল্লেখযোগ্য সামরিক সক্ষমতা এবং প্রযুক্তিগত দক্ষতা সহ একটি বৈশ্বিক শক্তি হিসাবে, এই চ্যালেঞ্জগুলি মোকাবেলায় একটি সম্ভাব্য অংশীদার হয়ে ওঠে। তাই, চীন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে ভারতের গভীর সম্পর্ককে উদ্বেগের কারণ হিসাবে দেখে, কারণ এটিকে তার নিজের উচ্চাকাঙ্ক্ষার জন্য একটি সম্ভাব্য বাধা হিসাবে বিবেচনা করে।

 

কংগ্রেস পার্টির বিস্ময়কর প্রতিক্রিয়া                                                                                                                      আশ্চর্যজনকভাবে, ছয় দশকেরও বেশি সময় ধরে ভারত শাসন করা কংগ্রেস দল মোদির মার্কিন সফর নিয়ে আপত্তি ও উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। মার্কিন প্রেসিডেন্টসহ আন্তর্জাতিক নেতাদের কাছ থেকে মোদি যে ইতিবাচক অভ্যর্থনা পেয়েছেন তা বিবেচনা করে এই প্রতিক্রিয়া উল্লেখযোগ্য।

কংগ্রেস এমনকি আন্তর্জাতিকভাবে যোগকে জনপ্রিয় করার জন্য মোদির প্রচেষ্টাকে দুর্বল করার চেষ্টা করেছিল, একটি কারণ যা তার নেতৃত্বে উল্লেখযোগ্য স্বীকৃতি পেয়েছে। যাইহোক, ঐতিহাসিক তুলনা এবং আন্তর্জাতিক কূটনীতিতে মোদীর কৃতিত্বকে ছোট করার প্রচেষ্টার উপর কংগ্রেস পার্টির ফোকাস পুরানো এবং বৈশ্বিক কূটনীতির বর্তমান বাস্তবতা থেকে বিচ্ছিন্ন বলে মনে হয়।

বৈশ্বিক গতিশীলতা এবং ভারতের কোমল শক্তির পরিবর্তন                                                                                  প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহেরুর মার্কিন সফরের সময় তাকে যে স্বাগত জানানো হয়েছিল তার উপর জোর দেওয়ার কংগ্রেস পার্টির প্রচেষ্টা বর্তমান যুগের ক্রমবর্ধমান নিরাপত্তা প্রোটোকল এবং কূটনৈতিক রীতিনীতিকে উপেক্ষা করে। যদিও ভারতীয় কূটনীতিতে নেহেরুর অবদান স্বীকার করা উচিত, এটি স্বীকার করা গুরুত্বপূর্ণ যে তখন থেকে বিশ্ব উল্লেখযোগ্যভাবে পরিবর্তিত হয়েছে।

WhatsApp Channel Join Now
Telegram Group Join Now

আন্তর্জাতিক নেতৃবৃন্দের সাথে মোদির সম্পৃক্ততা এবং যোগব্যায়ামকে জনপ্রিয় করার মতো প্রচেষ্টার জন্য তিনি যে স্বীকৃতি পেয়েছেন তা ভারতের বিকশিত নরম শক্তি এবং বিশ্ব সম্প্রদায়ের সাথে যুক্ত হওয়ার ক্ষমতাকে প্রতিফলিত করে।

 

কংগ্রেসের পাল্টা উৎপাদনশীল পদ্ধতি                                                                                                                  মার্কিন সিনেটর এবং কংগ্রেসম্যানদের দ্বারা স্বাক্ষরিত একটি চিঠি প্রকাশ করার কংগ্রেস পার্টির সিদ্ধান্ত, মোদির সাথে আলোচনার সময় বিডেনকে কিছু উদ্বেগ দূর করার আহ্বান জানিয়ে, ভারত ও মার্কিন উভয় সরকারের কাছ থেকে খুব কম মনোযোগ দেওয়া হয়েছে বলে মনে হয়।

এটা স্বীকার করা গুরুত্বপূর্ণ যে আন্তর্জাতিক কূটনীতি হল একটি সংক্ষিপ্ত প্রক্রিয়া যার মধ্যে অংশীদারিত্ব গড়ে তোলা এবং সংলাপ ও আলোচনার মাধ্যমে উদ্বেগের সমাধান জড়িত। কংগ্রেস পার্টির দ্বারা প্রদর্শিত একটি সংঘাতমূলক পন্থা অবলম্বন করা উল্টো ফলদায়ক এবং বৈশ্বিক মঞ্চে ভারতের স্বার্থকে বাধাগ্রস্ত করতে পারে।

 

মোদির মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সফর নিয়ে চীনের উদ্বেগ ভারতের ক্রমবর্ধমান কৌশলগত অংশীদারিত্ব এবং চীনের আঞ্চলিক সম্প্রসারণের মুখে নিরাপত্তার চেষ্টা থেকে উদ্ভূত। কংগ্রেস পার্টির আশ্চর্যজনক প্রতিক্রিয়া এবং মোদির কৃতিত্বকে ছোট করার চেষ্টা বিশ্বব্যাপী কূটনীতির পরিবর্তনশীল গতিশীলতাকে উপেক্ষা করে।

ভারতের জাতীয় স্বার্থ এবং বৈশ্বিক সম্পর্কের বিকশিত প্রকৃতির কথা মাথায় রেখে আন্তর্জাতিক ব্যস্ততায় একটি গঠনমূলক এবং অগ্রসর-চিন্তাশীল পদ্ধতি গ্রহণ করা রাজনৈতিক দলগুলির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। শেষ পর্যন্ত, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য কৌশলগত অংশীদারদের সাথে ভারতের সম্পৃক্ততাকে বৈশ্বিক মঞ্চে তার অবস্থানকে শক্তিশালী করার এবং একটি ক্রমবর্ধমান আন্তঃসংযুক্ত বিশ্বে তার নিরাপত্তা ও সমৃদ্ধি নিশ্চিত করার একটি সুযোগ হিসাবে দেখা উচিত।

Leave a Comment

Enable Notifications OK No thanks