শিশুর বৃদ্ধি জনিত ব্যথা ও তার প্রতিকার Baby’s growing pains and its remedies

শিশুর বৃদ্ধি জনিত ব্যথা ও তার প্রতিকার Baby’s growing pains and its remedies : শৈশবকালে শিশুর বৃদ্ধির হার ও বিকাশ অনেকটাই বেশি সেটা শারীরিক এবং মানসিক উভয় ক্ষেত্রেই হয়ে থাকে। যেহেতু শিশুদের বৃদ্ধির হার বেশি সেই সংক্রান্ত কিছু ব্যথা তারা অনুভব করে থাকে। যদিও ওই বৃদ্ধিজনিত ব্যথা এটা বিকাশের একটা স্বাভাবিক ঘটনা কিন্তু কখনো কখনো সেটাই তার অভিভাবকের উদ্বেগের কারণ হতে পারে।

আমরা এখানে শিশুর বৃদ্ধি জনিত ব্যথা যন্ত্রণা বোঝার চেষ্টা করব এবং তা থেকে থেকে নিরাময়ের উপায় নিয়ে আলোচনা করব।

শিশুর বৃদ্ধিজনিত ব্যথা বলতে কেবল শিশুর হাড়ের বৃদ্ধি নয়, শিশু বড় হবার সঙ্গে সঙ্গে দেহের যে দ্রুত পরিবর্তন ঘটে সেটা লিগামেন্ট ও পেশীর বৃদ্ধির জন্যও হয়ে থাকে। এই ব্যথা প্রায়শই সাধারণত হয়ে থাকে, প্রাথমিকভাবে যা পায় হয় সাধারণত সন্ধ্যায় বা রাতে এই ব্যথা হয়ে থাকে। সাধারণত তিন থেকে বার বছর বয়সী শিশুদের এই ব্যথা হয়ে থাকে ছেলে মেয়ে উভয়কেই সমানভাবে প্রভাবিত করেই ব্যথা। 

শিশুরই বৃদ্ধি জনিত ব্যথা সঠিক কারণ সেভাবে স্পষ্ট না হলেও বেশ কয়েকটি কারণে এই ব্যথা হয়ে থাকে। 

  • শিশুরা দিনের বেলায় দৌড়ঝাঁপ বেশি করার জন্য পেসিতে ক্লান্তি আসে রাতে সম্ভাব্য কারণে অস্বস্তিজনিত ব্যাথা হতে পারে।
  • শিশুর হাড়ের বৃদ্ধি পেয়েছি ও লিগামেন্টে অসম অসমর চাপ দেবার জন্য অস্বস্তির ব্যথা হয়ে থাকে।
  • কিছু শিশুর জেনেটিক কারণে ই এই ব্যথা হতে পারে।
  • সঠিক পায়ের জুতো ব্যবহার না করার জন্য এই ব্যাথা হতে পারে এবং দুর্বল পেশির কারণও এই অস্বস্তির ব্যথা বাড়িয়ে তুলতে পারে।

বৃদ্ধিজনিত ব্যাথা ও অন্যান্য অবস্থার জন্য ব্যাথার মধ্যে পার্থক্য আছে। বৃদ্ধিজনিত কারণের ব্যথা এবং অন্যান্য অপরিহার্য বা সিরিয়াস অসুবিধার জন্য যে ব্যাথা দুটোর লক্ষণই একই হতে পারে। বৃদ্ধিজনিত ব্যথা বা অন্য কোন সিরিয়াস প্রবলেম এর জন্য ব্যথার মধ্যে পার্থক্য করতে গেলে আমাদেরকে লক্ষ্য করতে হবে বৃদ্ধিজনিত ব্যথা কখনোই অবিরাম ব্যাথা হবে না, জয়েন্ট বা গাঁট ফুলে যাবে না, লালভাব আসবে না, জ্বর আসবে না, চলাফেরার কোন পরিবর্তন হবে না বৃদ্ধিজনিত ব্যথার ক্ষেত্রে।

অর্থাৎ কোন সময় যদি শিশুর ব্যথার সঙ্গে জয়েন্ট বা গার্ট ফুলে যায় লাল ভাব আসে জ্বর আসে অথবা চলাফেরার পরিবর্তন দেখা দেয় সে ক্ষেত্রে সেটাকে আলাদা চোখে দেখতে হবে, সেটা তখন বৃদ্ধি জনিত ব্যথা না। যদি এই উপশম স্বর্গ গুলির মধ্যে কোন একটি উপস্থিত থাকে তাহলে সঠিক মূল্যায়নের জন্য অবশ্যই তৎক্ষণাৎ একজন পেশাদার চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করা অবশ্যই জরুরি।

এইবার আমরা আলোচনা করব শিশুর বৃদ্ধিজনিত ব্যথা নিরাময়ের উপায় নিয়ে। 

  • শিশুরাই বৃদ্ধি জনিত ব্যথা নিরাময়ের জন্য ব্যাথার স্থানে আলতোভাবে মেসেজ এবং মৃদু প্রসারিত করলে স্বস্তি বা আরাম মিলবে। 
  • ব্যথার জায়গায় হালকা উষ্ণ মেসেজ পেয়েছি শিথিল করতে ও অস্বস্তি কমাতে সাহায্য করবে।
  • শিশুর পেশির ও জয়েন্ট গুলির অস্বাভাবিক চাপ এড়িয়ে যাওয়ার জন্য শিশুকে ভালো ফিটিং জুতো পড়ানো উচিত সে ক্ষেত্রে স্বস্তি মিলবে।
  • এই ব্যথা উপশমের জন্য স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী কোন পেশাদারের নির্দেশনায় আইবুপ্রোফেন বা এসিটামিনোফেন এর মত ওভার দা কাউন্টার ম্যাসেজ ব্যবহার করা উচিত ব্যথা উপসমের জন্য।
  • শিশুর বিকাশ ও স্বাভাবিক বৃদ্ধির জন্য স্বাস্থ্যকর জীবনধারা অর্থাৎ শারীরিক কার্যকলাপ। সুষম খাদ্য ও পর্যাপ্ত ঘুমের দিকে খেয়াল দেওয়া উচিত।

সাধারণত শিশুর এই বৃদ্ধিজনিত ব্যথা উপশমের ব্যবস্থা গুলি আমরা বাড়িতেই করতে পারি যদি ব্যথা ক্রমাগত হয়ে থাকে এবং দৈনন্দিন কাজকর্মে তা বাধা সৃষ্টি করে বা অস্বাভাবিক উপসর্গ থেকে থাকে তাহলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া গুরুত্বপূর্ণ। সেক্ষেত্রে ডাক্তারবাবু যদি বোঝেন বিদ্বিজনিত ব্যথার কারণ না হয়ে থাকে তাহলে যথাযথ ব্যবস্থা নেবার পরামর্শ তিনি দিতে পারেন।

WhatsApp Channel Join Now
Telegram Group Join Now

শিশুর এই বৃদ্ধিজনিত ব্যথা যদি ক্রমবর্ধমান ও অস্বস্তিকর হয়ে থাকে তাহলে মনে রাখবেন সে ক্ষেত্রে অবশ্যই সর্তকতা অবলম্বন করা উচিত সন্তানের স্বাভাবিক জীবন যাপন ও সুস্থতার বিষয়ে মাথায় রেখে অবশ্যই যত শীঘ্র সম্ভব ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা সর্বদাই উচিত।

1 thought on “শিশুর বৃদ্ধি জনিত ব্যথা ও তার প্রতিকার Baby’s growing pains and its remedies”

Leave a Comment

Enable Notifications OK No thanks